শিরোনাম

৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:১৭

লালমোহনে এক মাসে শততম প্রসব উপলক্ষে ব্যতিক্রমী আয়োজন

ডেইলি বরিশাল সংবাদ সংবাদ সংগ্রহে সারাক্ষন

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২, ২০২৪ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ
Print Friendly and PDF

মুশফিক হাওলাদার ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক মাসে একশত স্বাভাবিক প্রসব উপলক্ষ্যে ব্যতিক্রমী এক আয়োজন করা হয়েছে। ২০২৪ সালের জানুয়ারি মাসের প্রথম দিন থেকে শেষ দিন পর্যন্ত এ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একশত জন প্রসূতি মা সন্তান প্রসব করেন। সর্বশেষ শততম সন্তান প্রসবকারী প্রসূতি মা ও নবজাতককে নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে করা হয় বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হলরুমে এ উপলক্ষ্যে কেক কাটা হয়। শততম প্রসূতি মা মোসা. লিপিকাকে শাড়ি ও তার নবজাতক ছেলে সন্তানকে দেওয়া হয় বস্ত্র উপহার। এ সময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. তৈয়বুর রহমান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মো. মহসিন খানসহ অন্যান্য চিকিৎসক, নার্স, মিডওয়াইফ ও স্টাফরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসূতি মোসা. লিপিকা জানান, এখানের চিকিৎসক ও নার্সরা আমাকে আন্তরিকতার সঙ্গে সেবা দিয়েছেন। তাদের সহযোগিতায় আমি তৃতীয় সন্তান প্রসব করেছি। লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে আমাকে শাড়ি ও সন্তানকে নতুন বস্ত্র উপহার দেওয়া হয়েছে। এ জন্য আমি এবং আমার পরিবারের সকলে অনেক খুশি।
ওই প্রসূতির স্বামী মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, বুধবার রাতে আমার স্ত্রীর প্রসব বেদনা উঠে। এরপর তাকে নিয়ে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসি। রাতেই একজন ছেলে সন্তান প্রসব করেন আমার স্ত্রী। এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জানুয়ারি মাসে আরো ৯৯ জন প্রসূতি সন্তান প্রসব করেছে। আমার স্ত্রী শততম সন্তান প্রসবকারী নারী। যার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে কেক কাটা হয়েছে। আমার স্ত্রীকে শাড়ি ও নবজাতক সন্তানকে বস্ত্র উপহার দেওয়া হয়েছে। এই আয়োজনে আমরা খুশি। এ জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকলের প্রতি।
এ বিষয়ে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. তৈয়বুর রহমান বলেন, এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইতিহাসে এক মাসে একশত স্বাভাবিক প্রসবের ঘটনা এই প্রথম। এটি সম্ভব হয়েছে আমাদের ডাক্তার, নার্স, মিডওয়াইফ ও স্টাফদের আন্তরিক প্রচেষ্টার জন্য। এক মাসে একশত প্রসবকে স্মরণীয় করে রাখতে আমরা ব্যতিক্রমী একটি আয়োজন করেছি। যেখানে শততম প্রসব উপলক্ষ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা ও স্টাফরা মিলে কেক কেটেছি। এছাড়া শততম সন্তান প্রসবকারী প্রসূতি মাকে শাড়ি ও তার নবজাতক শিশুকে নতুন বস্ত্র উপহার দেওয়া হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা সকল প্রসূতি মায়েদের স্বাভাবিক প্রসবে উদ্বুদ্ধ করতে চাই। এ জন্য সকলের প্রতি আহ্বান থাকবে নিরাপদ প্রসবের জন্য লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসার। আমাদের এখানের প্রত্যেক ডাক্তার, নার্স, মিডওয়াইফ ও স্টাফরা আন্তরিকতার সঙ্গে রোগীদের সেবা দেবেন।লালমোহনে এক মাসে শততম প্রসব উপলক্ষে ব্যতিক্রমী আয়োজন
মুশফিক হাওলাদার বিশেষ প্রতিনিধি:
ভোলার লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক মাসে একশত স্বাভাবিক প্রসব উপলক্ষ্যে ব্যতিক্রমী এক আয়োজন করা হয়েছে। ২০২৪ সালের জানুয়ারি মাসের প্রথম দিন থেকে শেষ দিন পর্যন্ত এ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একশত জন প্রসূতি মা সন্তান প্রসব করেন। সর্বশেষ শততম সন্তান প্রসবকারী প্রসূতি মা ও নবজাতককে নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে করা হয় বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হলরুমে এ উপলক্ষ্যে কেক কাটা হয়। শততম প্রসূতি মা মোসা. লিপিকাকে শাড়ি ও তার নবজাতক ছেলে সন্তানকে দেওয়া হয় বস্ত্র উপহার। এ সময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. তৈয়বুর রহমান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মো. মহসিন খানসহ অন্যান্য চিকিৎসক, নার্স, মিডওয়াইফ ও স্টাফরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসূতি মোসা. লিপিকা জানান, এখানের চিকিৎসক ও নার্সরা আমাকে আন্তরিকতার সঙ্গে সেবা দিয়েছেন। তাদের সহযোগিতায় আমি তৃতীয় সন্তান প্রসব করেছি। লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে আমাকে শাড়ি ও সন্তানকে নতুন বস্ত্র উপহার দেওয়া হয়েছে। এ জন্য আমি এবং আমার পরিবারের সকলে অনেক খুশি।
ওই প্রসূতির স্বামী মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, বুধবার রাতে আমার স্ত্রীর প্রসব বেদনা উঠে। এরপর তাকে নিয়ে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসি। রাতেই একজন ছেলে সন্তান প্রসব করেন আমার স্ত্রী। এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জানুয়ারি মাসে আরো ৯৯ জন প্রসূতি সন্তান প্রসব করেছে। আমার স্ত্রী শততম সন্তান প্রসবকারী নারী। যার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে কেক কাটা হয়েছে। আমার স্ত্রীকে শাড়ি ও নবজাতক সন্তানকে বস্ত্র উপহার দেওয়া হয়েছে। এই আয়োজনে আমরা খুশি। এ জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকলের প্রতি।
এ বিষয়ে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. তৈয়বুর রহমান বলেন, এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইতিহাসে এক মাসে একশত স্বাভাবিক প্রসবের ঘটনা এই প্রথম। এটি সম্ভব হয়েছে আমাদের ডাক্তার, নার্স, মিডওয়াইফ ও স্টাফদের আন্তরিক প্রচেষ্টার জন্য। এক মাসে একশত প্রসবকে স্মরণীয় করে রাখতে আমরা ব্যতিক্রমী একটি আয়োজন করেছি। যেখানে শততম প্রসব উপলক্ষ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা ও স্টাফরা মিলে কেক কেটেছি। এছাড়া শততম সন্তান প্রসবকারী প্রসূতি মাকে শাড়ি ও তার নবজাতক শিশুকে নতুন বস্ত্র উপহার দেওয়া হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা সকল প্রসূতি মায়েদের স্বাভাবিক প্রসবে উদ্বুদ্ধ করতে চাই। এ জন্য সকলের প্রতি আহ্বান থাকবে নিরাপদ প্রসবের জন্য লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসার। আমাদের এখানের প্রত্যেক ডাক্তার, নার্স, মিডওয়াইফ ও স্টাফরা আন্তরিকতার সঙ্গে রোগীদের সেবা দেবেন।

শেয়ার করুন :

বরিশাল সংবাদ ২৪

বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন।

বরিশাল সংবাদ ২৪

Call

নামাজের সময়সূচি
May 31, 2024
Fajr 3:44 am
Sunrise 5:07 am
Zuhr 11:56 am
Asr 4:35 pm
Maghrib 6:44 pm
Isha 8:07 pm
Dhaka, Bangladesh
May 2024
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

সংবাদ সংগ্রহে সারাক্ষণ